fbpx
skip to Main Content
সন্তানের উদ্বেগগুলোকে সারিয়ে তুলুন

যদি আপনার শিশু উদ্বিগ্ন বোধ করে তবে তাদের আশ্বস্ত করুন যে এই অনুভূতিগুলো নতুন ব্যক্তি, ঘটনা বা সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জের পরিস্থিতিতে একটি সাধারণ প্রতিক্রিয়া। আপনার শিশুকে বোঝাতে সহায়তা করুন। এমন ক্রিয়া-কলাপ চালিয়ে যেতে পারেন যাতে করে তারা উপভোগ করে। আপনার সন্তানের সমস্যাগুলো সমাধান করার জন্য এবং উদ্বেগের কারণ গুলো এড়াতে চেষ্টা করুন। নির্দিষ্ট কিছু জায়গা বা পরিস্থিতি রয়েছে যেখানে বাচ্চারা ভীষণ উদ্বিগ্ন হয়ে যায়। যেমন ক্লাস রুম, নতুন মানুষজনদের সংস্পর্শ, সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করা, নতুন পরিবেশে মায়ের এক পলক চোখের আড়াল হওয়া ইত্যাদি বিভিন্ন সময় বাচ্চারা ভীষণ উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। আপনার সন্তানের উদ্বেগের কারণ গুলো‌ কমাতে এবং এ থেকে তাদেরকে সুরক্ষা করতে শৈশব কাল থেকেই সমাধানের চেষ্টা করুন। 

বাচ্চার উপযুক্ত মানদন্ড তৈরি করুন: 

আপনার বাচ্চাকে উপযুক্ত মানদন্ড তৈরি করতে সহায়তা করুন। শিশুকে এটা শেখানো যায় যে সে যেই উদ্বেগজনক অনুভূতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এটা সে সহজেই উতরে যেতে পারে।  আপনার বাচ্চাদের মধ্যে একজন ছাড়া সবাই হয়তো কোনো অনুষ্ঠানে যোগ দিতে চাইবে, বাড়িতে নতুন কেউ এলে তাদের সাথে খেলায় মেতে উঠবে। কিন্তু আপনার উদ্বিগ্ন বাচ্চাটি এ সমস্ত কিছু এড়িয়ে যাবে। এই পরিস্থিতিতে আপনি তার জন্য সমান গুরুত্বপূর্ন এক মানদণ্ড তৈরি করুন। তাকেও বেড়াতে নিয়ে যান তবে অনেক বেশি হৈ-হুল্লোড় হবে, আপনার বাচ্চাকে নিয়ে সবাই মেতে থাকবে এমন অতিরঞ্জিত কিছু যেন না হয়। এতে করে আপনার বাচ্চা এই পরিস্থিতি গুলোতে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারবে না। তাকে বুঝতে সাহায্য করুন তার উদ্বেগের বিষয় গুলো সহজেই পরিচালনা করা যায়। 

সন্তান যেটা নিয়ে উদ্বিগ্ন সে বিষয়ে তাকে সহায়তা করুন: 

আপনার সন্তান যা ভয় পায় তা থেকে সব সময় যে তাকে দূরে রাখবেন সেটা নয়। সে যেটা নিয়ে খুব বেশি উদ্বিগ্ন সেই পরিস্থিতিতে তাকে স্বাভাবিক রাখতে আপনি এবং আপনার বাচ্চা দুজনেই ভূমিকা পালন করুন। যেমন আপনার বাচ্চা যদি একা একা সিঁড়ি দিয়ে নামতে বা উঠতে খুব ভয় তবে তাকে নিয়ে গল্পের ছলে সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করুন। তাকে এটা বুঝতে সাহায্য করুন যে এই কাজটা কঠিন কিছু নয় এবং এখানে উদ্বিগ্ন হওয়ারও কোনো কারণ নেই। আস্তে আস্তে সে সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামার ভীতি কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবে। আপনি এবং আপনার বাচ্চা দুজন মিলেই উদ্বিগ্ন পরিস্থিতি স্বাভাবিক করুন। শিশুর উদ্বিগ্ন হওয়ার বিষয়গুলো একসাথে প্রতিরোধ করুন এবং তাকে নিরবচ্ছিন্ন সময় দিন। 

সব সময় এড়িয়ে চলা থেকে বিরত থাকুন: 

আপনার শিশুকে তার উদ্বেগজনক চিন্তাভাবনা, পরিস্থিতি গুলোতে ভয় পেয়ো না, চিন্তিত হয়ো না এসব বলতে থাকলেই যে তার উদ্বেগের কারণ গুলো উবে যাবে এমনটা কিন্তু নয়। তাকে এসব মোকাবেলা  করা শিখতে সহায়তা করুন। যদি আপনার শিশু কুকুর ভয় পায় আর রাস্তা দিয়ে হাঁটার সময় যদি আপনি তাকে কুকুরের মুখোমুখি না হয়ে রাস্তা পার করিয়ে দেন তাহলে কুকুরের প্রতি তার ভয়টাকে যেন আরো বেশি স্থায়ী করে দেয়া হলো। তারচেয়ে বরং তাকে নিয়ে পার্কে চলে যান। শান্তশিষ্ট কুকুরদের খেলাগুলো তাকে দূর থেকে দেখান। ‌ বাড়িতে কুকুরদের সুন্দর সুন্দর কার্টুন, তাদের খেলাধুলা এ সমস্ত কিছু দেখান। আপনার সন্তানকে বুঝিয়ে দিন যে এরা ভয় পাওয়ার মত কিছু নয়। আস্তে আস্তে কুকুরদের প্রতি তার ভীতি কেটে যাবে। 

পরিস্থিতিকে নতুন করে সাজাতে সহায়তা করুন: 

আপনার বাচ্চা যে বিষয়গুলো নিয়ে উদ্বিগ্ন সেই বিষয়গুলো তার কাছে নতুন করে সাজিয়ে নিন। যেমন আপনার বাচ্চা ক্লাসে কথা বলতে ভয় পায়। এর কারণ হলো একদিন সে একটা ভুল উত্তর বলেছিল এবং পাশে বসা আরেকটি বাচ্চা তার কথা শুনে হেসে দিয়েছিল। এরপর থেকে আপনার বাচ্চা ক্লাসে কথা বলতে চায় না, ভয় পায়। সর্বদাই চুপ করে থাকে। ‌ এই বিষয়টি তার কাছে নতুন করে সাজিয়ে দিন। তাকে এটা বুঝাতে সাহায্য করুন যে, সেই বাচ্চাটি হেসেছিলো বলে তোমার অনুভূতিতে আঘাত লেগেছে। তবে তোমার ক্লাসে আরো অনেক ভালো বন্ধু রয়েছে এবং তারা তোমার কথা শুনতে চায়, তোমার সঙ্গে খেলতে চায়। সুতরাং এখন থেকে তুমি আর ক্লাসে বোবা হয়ে থাকবে না। 

সন্তানের অনুভূতিগুলোকে সহানুভূতির সাথে সাড়া দিন: 

আপনার সন্তান যখন কোন কিছু নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে যায় তখন বন্ধুর মতো সেই পরিস্থিতি গুলোতে সাড়া দিন। ধৈর্য্য হারা হয়ে যাবেন না। যেমন আপনার শিশু অন্ধকার খুব ভয় পায়, আলো নিভিয়ে দিলেই চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করে। এই পরিস্থিতিতে তাকে এড়িয়ে চলবেন না বা ‘ভয় পেয়ো না’ ‘কিছুই হবে না’ এরকম বলে তাকে অসহায় করে দেবেন না।‌ বরং বন্ধুর মতো তাকে সাড়ি দিন। তাকে বোঝান এইভাবে যে দেখো, আমরা এখন অন্ধকার ঘরে আছি; কিন্তু কই কোনো ভূতকে তো দেখতে পাচ্ছি না; ‌তাদের  শব্দ শুনতে পাচ্ছি না; অন্ধকারে ভূত আসে অথচ ভূতকে তো এখনো দেখতে পাচ্ছি না; তাহলে ভূত বলতে আসলে কিছুই নেই;  আমরা আজকে থেকে আর অন্ধকারকে ভয় পাব না।‌ এভাবে তার মস্তিষ্ক থেকে ভয়ঙ্কর চিন্তাভাবনাগুলোকে মুছে দিন। 

শিশুর উদ্বেগজনক মুহূর্তগুলোতে তাকে কিছু শরীর চর্চা শিখিয়ে দিন: 

আপনার শিশুর উদ্বেগজনক মুহূর্তগুলোতে যেন সে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে এজন্য তাকে কিছু শরীরচর্চা শিখিয়ে দিন। সে যখন শান্ত বোধ করবে তখন এই উদ্বেগ পরিচালনার সরঞ্জামগুলি তার সঙ্গে অনুশীলন করুন। যখন সে নার্ভাস থাকে তখন অনুশীলন করা তার পক্ষে সহজ হবে; গভীর নিঃশ্বাস নাও, তুমি সবচেয়ে সাহসী, সবাই তোমাকে ভালবাসে, সবাই তোমার সাথে খেলতে চায় ইত্যাদি বিষয়গুলো তার সাথে অনুশীলন করুন। আস্তে আস্তে তার উদ্বেগ কেটে যাবে। সে স্বাভাবিক হয়ে আসবে। ‌ নেতিবাচক চিন্তা ভাবনা গুলো থেকে দূরে সরে আসবে। ‌

যদি আপনার সন্তানের মাত্রাতিরিক্ত উদ্বেগ, অস্বাভাবিকতা দেখা দেয় তবে শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ বা পেশাদার সাইকোলজিস্টের সহায়তা নিন। এক্ষেত্রে দ্বিধা করবেন না। শৈশব কাল থেকেই শিশুর  এ সমস্ত বিষয়গুলোর প্রতি যত্নবান হওয়া উচিত। কারণ সময় মত এগুলো খেয়াল না করা হলে শিশু বড় হয়ে গেলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। পর্যাপ্ত ঘুম, পুষ্টিকর খাবার এবং শরীরচর্চা উদ্বিগ্ন বাচ্চাদের জন্য খুবই উপকারী। আপনার সন্তান যেন ঠিক সময় মত ঘুমাতে যায় এবং ঠিক সময় ঘুম থেকে ওঠে, অস্বাস্থ্যকর খাবার থেকে বিরত থাকে, নিয়মিত খেলাধূলা করে এই বিষয়গুলো খেয়াল রাখুন।

This Post Has 843 Comments
  1. Youre so amazing! I do not mean Ive review anything such as this prior to. So wonderful to locate somebody with some initial thoughts on this subject. realy thanks for beginning this up. this website is something that is required on the internet, a person with a little originality. useful job for bringing something brand-new to the internet!

  2. Youre so amazing! I do not mean Ive review anything such as this prior to. So wonderful to locate somebody with some initial thoughts on this subject. realy thanks for beginning this up. this website is something that is required on the internet, a person with a little originality. useful job for bringing something brand-new to the internet!

  3. Youre so amazing! I do not mean Ive review anything such as this prior to. So wonderful to locate somebody with some initial thoughts on this subject. realy thanks for beginning this up. this website is something that is required on the internet, a person with a little originality. useful job for bringing something brand-new to the internet!

  4. Youre so amazing! I do not mean Ive review anything such as this prior to. So wonderful to locate somebody with some initial thoughts on this subject. realy thanks for beginning this up. this website is something that is required on the internet, a person with a little originality. useful job for bringing something brand-new to the internet!

  5. Youre so amazing! I do not mean Ive review anything such as this prior to. So wonderful to locate somebody with some initial thoughts on this subject. realy thanks for beginning this up. this website is something that is required on the internet, a person with a little originality. useful job for bringing something brand-new to the internet!

  6. Youre so amazing! I do not mean Ive review anything such as this prior to. So wonderful to locate somebody with some initial thoughts on this subject. realy thanks for beginning this up. this website is something that is required on the internet, a person with a little originality. useful job for bringing something brand-new to the internet!