fbpx
skip to Main Content

খাদ্য তালিকা সিরিজ – বয়স যখন ছয় মাস

কখনো যদি এমন হয় দুই মাসের বাচ্চা আশি বছরের বুড়োর মত কথা বলছে তাহলে কেমন হবে ব্যাপারটা। নিশ্চয়ই হতবাক হয়ে যাবেন। ভয় পেয়ে যাবেন। বাস্তবতা হলো দুই মাস বয়সী বাচ্চা এমন কথা বলবেও না। হাত পা নেড়ে খেলবে, খিদা লাগলে মা কে খুঁজবে, আর খোঁজার ভাষা হবে কান্না। তাই যদি হয় তাহলে নিশ্চয় সব বয়সী মানুষের খাবার এক হবে না। বয়সভেদে, প্রয়োজনভেদে খাবার হবে ভিন্ন। এবার বুঝবেন কিভাবে কোন বয়সে কি খাবার হবে। সেই ব্যাপারেই আজকের আলোচনা। আজকে বলবো ছয়…

আমার সন্তান কিছুই খায় না, কিচ্ছু না…

আমি খাবো না, না না না....! -খাও না বাবা, একটু খাও! খেতে হবে তো! ওই যে দেখো একটা টিকটিকি, ও কিন্তু সব খেয়ে ফেলবে। - আমি টিকটিকি দেখব না কার্টুন দেখব বলেই ছুট! আপনিও ছুটলেন পিছু পিছু৷ এই কসরত দিনে বেশ কয়েকবার করেন ঘন্টার পর ঘন্টা তাও বাচ্চা খেতে চায় না। "বাচ্চা খেতে চায় না" ৯০ ভাগ মায়েদের একটি কমন অভিযোগ! যখনই কোনো শিশু ডাক্তার বা পুষ্টিবিদের কাছে মা-বাবা যান এই একটি অভিযোগ করবেনই। দেখা যায়, ডক্টরকে বলেন - বাচ্চাকে…

কিভাবে আপনার সন্তানের জন্য সঠিক ফর্মুলাটি বেছে নিবেন

আজকে যে বিষয়টা নিয়ে আলোচনা করার ধৃষ্টতা দেখাতে এসেছি সেটা হলো শিশুদের ফর্মুলা প্রদান। এখুনি অনেকে হৈ হৈ করে বলে উঠবেন, ফর্মুলা? নো ওয়ে!!!!! কিন্তু আমার কথা হলো দুনিয়ার সব শিশুর কপাল এত ভালো না ও হতে পারে যে তারা শুধুমাত্র মায়ের দুধের উপর নির্ভর করতে পারবে। কোন কোন শিশু মায়ের দুধই পায় না, কেউ বা পেলেও কম পায় যা তার পুষ্টি চাহিদা মেটাতে পারে না, অনেকের মা আবার বাইরে কাজে যেতে বাধ্য হয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে শিশু ভেদে পুষ্টি…

আপনার নবজাতককে সঠিকভাবে বুকের দুধ খাওয়ানো হচ্ছে তো?

‘নবজাতকের জন্য মায়ের দুধের বিকল্প নেই।’ কথাটি প্রায় আমরা সবাই ই কমবেশি নিয়মিত শুনি এবং জানি। তবে অনেকেই এটা জানি না যে কি করে এই বুকের দুধ টা খাওয়াতে হবে। কিংবা বাচ্চার খাবারের রুটিন বা নিয়মিত এর ব্যালেন্সটা কেমন হওয়া উচিত। কতক্ষণ পরপর বাচ্চাকে খাওয়াতে হবে: এ ব্যাপারে মনে রাখা উচিত যে প্রতিটি শিশুই আলাদা। তাদের প্রকৃতি, তাদের গঠন ভিন্ন। তাই তাদের চাহিদাও সমান নয়। তাই আপনার শিশুর ক্ষিধা লাগার লক্ষণগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখার চেষ্টা করুন। একমাত্র সে ই জানে…

শিশুর সুষম খাবার : কখন এবং কীভাবে

একটি শিশুর জন্মের পর থেকে প্রতিটি বাবা-মা যে বিষয়টি নিয়ে সব থেকে বেশি সচেতন থাকে সেটা হলো শিশুর খাদ্য। সচেতনতার পাশাপাশি যে জিনিসটি সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ সেটি হলো এই বিষয়ে সঠিক জ্ঞান। কি হবে শিশুর খাদ্য, কোন বয়সের জন্য কোন খাবারটি উপযুক্ত, কিভাবে প্রস্তুত করা যায় সেই খাবার, বাসায় বানানো খাবার নাকি বাইরের খাবার, আর কিভাবে তা পরিচ্ছন্ন ও স্বাস্থ্যকর উপায়ে পরিবেশন এবং সংরক্ষণ করা যায় এই সব বিষয়ে সম্যক জ্ঞান থাকলেই একমাত্র শিশুর খাবার পরিপূর্ন ভাবে দেয়া সম্ভব হয়। তাই…

error: Content is protected !!