fbpx
skip to Main Content

গর্ভকালীণ সময়ে মায়ের যত্ন

মানব জাতীর প্রজনন ধারা হলো গর্ভধারন। এটা একটা জটিল প্রক্রিয়া যেখানে একজন নতুন মানুষ জন্ম দিতে গিয়ে অনেক সময় মা জীবন-মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে। তাই গর্ভাবস্থার শুরু থেকে বাচ্চা জন্ম দেয়া পর্যন্ত একজন মা-কে থাকতে হয়ে পুরো নজরদারির মাঝে। কেননা হরমোনাল চেইঞ্জ যখনই শুরু হতে থাকে মায়ের শরীরে তখন থেকেই তার বাহ্যিক পরিবর্তন এবং মানসিক পরিবর্তণ ও লক্ষ্য করা যায়। এ সময় তাঁকে বাচ্চাদের মত করে দেখভাল করতে হবে। কারন তার শরীরের হরমনের পরিবর্তণ তার সব কিছুই উলটা পালটা করে…

সন্তানের অনলাইন ক্লাসের সময় আশেপাশেই থাকুন

গবেষণা বলে  যে, প্রতি ১০০ বছর পরপর একটি মহামারী দেখা দেয় । আর এই সময় পৃথিবীর মানুষদের পার করতে হয় একটি সংকটপূর্ণ সময়। ইন্টারনেটের বিস্তারের বয়স কেবল ২০ বছর । আর  আমাদের দেশে এমন কোন মুহুর্ত আমাদের সন্তানরা আগে পার করেনি যেখানে তারা , মোবাইল বা ল্যাপটপ কিংবা ট্যাবের পর্দায় তাঁকে ক্লাস করতে হবে। যদিওবা উন্নত বিশ্বে পর্দায় ক্লাস করে অভ্যস্ত শিশুরা কিন্তু আমাদের শিশুরা নয় । তাই অনলাইন ক্লাসের সময় আমাদের বাচ্চাদেরকে সবসময়ই নজরদারির মধ্যে রাখতে হবে। ইন্টারনেট হলো…

গর্ভাবস্থায় স্ট্রেচ মার্কস হওয়ার কারণ এবং প্রতিকার

যখনই শরীরে আরেকটা প্রাণের অনুভূতি আসে সেদিন থেকেই একটা মেয়ে নতুন পরিচয়ে পরিচিত হয়। ছোট্ট শিশুর আগমনে পুরো জীবন পরিবর্তন হয়ে যায়। মেয়েরা সব সময় একটু বেশিই সৌন্দর্য প্রিয়। তবে তার গর্ভধারণের কারণে পেটে কিছু দাগ পড়ে যায় যেটাকে স্ট্রেচ মার্কস বলে। অর্থাৎ মানুষের ত্বকে কোনো কারণে টান পড়লে এ ধরনের দাগ পড়ে। স্ট্রেচ মার্কস পড়ার কারণ সমূহ: গর্ভাবস্থায় এই ধরনের দাগ হওয়া অনিবার্য। ক্রমবর্ধমান ভ্রুনের জন্য জায়গা তৈরি করতে জরায়ু বড় হতে থাকে এবং এতে পেটের চারপাশের ত্বক প্রসারিত…

পরিবারে অশান্তি : সন্তান দূর্বলতা নাকি শক্তি?

কেস স্টাডি ১ মোহনার আজকেও ঝগড়া হয়েছে আতিকের সাথে। সেই একই ইস্যু। ওর চাকরি। ঘটনা যেখান থেকেই শুরু হোক না কেন, এসে ঠেকবে এই চাকরিতেই।সকাল বেলাটায় দম ফেলার ফুরসত মেলে না। সূর্য ওঠার আগেই ঘুম থেকে জাগে ও। আতিকের আবার পরোটা না হলে চলবে না। মেয়ের বাবার নাস্তা, মেয়ের সকালের আর দুপুরের খাবার, আর রাতের রান্নার যোগাড়যন্ত্র করা সব কিছু মিলে পুরো হাপিয়ে ওঠে মোহনা। আতিক নিজে এক গ্লাস পানি ও ঢেলে খাবে না। পুরো টেবিল সাজিয়ে ওকে ডাকতে হবে।…

সি-সেকশন নাকি নরমাল ডেলিভারি?

প্রেগন্যান্সির প্রতিটি পর্ব একজন হবু মা এর জন্য যতখানি উত্তেজনার, যতখানি আনন্দের ঠিক ততখানিই বা তার চেয়েও বেশি উৎকন্ঠাপূর্ণ। তার গর্ভের শিশুটি সুস্থ আছে কিনা, ঠিকঠাক মতোন নড়াচড়া করছে কিনা, তার সঠিক বৃদ্ধি হচ্ছে কিনা, এগুলোর পাশাপাশি ডিউ ডেইট অর্থাৎ ডেলিভারি সময় যত ঘনিয়ে আসে, সেই ভীতিকর প্রশ্ন টি যেন ততোই তাড়া করে ফেরে। নরমাল ডেলিভারি নাকি সি সেকশন? নরমাল ডেলিভারিতে সুবিধা - অসুবিধা : # এতে যেহেতু কোন অপারেশন এর ব্যাপার নেই তাই মায়েরা প্রসবের দিন থেকেই সাধারণত স্বাভাবিক…

ব্রেস্টফিডিং : অপর্যাপ্ততা ভীতি ও সমাধান

শামা মাত্র তিন দিন আগেই ফুটফুটে একটা মেয়েবাবুর জন্ম  দিয়েছে। প্রসব পরবর্তি ধকল সামলে কিছুটা ধাতস্থ হতেই নতুন দুর্ভাবনা মাথায় জাকিয়ে বসেছে। তার বাবুটি ঠিকঠাক মতোন খাবার পাচ্ছে তো? এই লেখাটি সে-ই সব নতুন মায়েদের জন্য, যারা শামার মতো তাদের নবজাতকের প্রয়োজনীয়/যথেষ্ট দুধপান নিয়ে চিন্তিত। কিভাবে বুঝবেন আপনার নবজাতক যথেষ্ট দুধ পাচ্ছে : আপনার শিশুটি খেয়ে তৃপ্ত হচ্ছে কি না তা নিচে উল্লেখিত কয়েকটি লক্ষন মিলিয়ে নিয়ে বুঝতে পারেন। পাঁচ থেকে সাত দিন বয়সের একটি শিশু স্বাভাবিক ভাবে  দিনে তিন…

নিরাপদ গর্ভধারণ ও মাতৃত্ব

একটি মানবশিশু অন্য আরেকটি মানবশরীরে সওয়ার হয়ে পৃথিবীতে আসার মতো জটিল ব্যাপার আর নেই।সাধারণত সব মেয়েই জীবনের কোন না কোন পর্যায়ে যে ব্যাপার টি নিয়ে স্বপ্নালু হয়ে থাকে, যা তার চিন্তা ভাবনা থেকে শুরু করে যাপিত জীবন কে আমূল বদলে দেয় তার নাম মাতৃত্ব। মাতৃত্ব এমন একটি ব্যাপার যা একটি মেয়ের গর্ভধারণ এর প্রথম দিন থেকে শুরু হয় এবং ঠিক ততদিন অবধি জারী থাকে যতদিন তার নিজের জীবনের যবনিকাপাত না ঘটে। তবে এই সমস্ত প্রক্রিয়াটি যতখানি আনন্দ ও উদ্দীপনাপূর্ণ ততখানিই…

জন্মনিয়ন্ত্রণ : উপায় জানা আছে তো?

গর্ভধারণ রোধের বিভিন্ন উপায় নিয়ে আলোচনা, পর্যালোচনা, কি করনীয় আর কি বর্জনীয় এবং এর নানা সুবিধা অসুবিধা নিয়ে সচেতনতা তৈরিই মূলত আজকের এই লেখার উদ্দেশ্য।  অনেকের মতে জীবনের খাতিরেই নতুন জীবন আগমনে এই "নিয়ন্ত্রণ"। আসলে আমাদের প্রত্যেকেরই নিজস্ব চিন্তা ভাবনা, পারিবারিক, সামাজিক দায়বদ্ধতা, আর্থিক সীমাবদ্ধতা সামগ্রিকভাবে সকল অনুঘটকগুলো বিবেচনায় এনে জীবনের এই বিশেষ সিদ্ধান্ত গুলো আমরা নিয়ে থাকি।  একটু অসচেতনতা বা একটু অবহেলার মূল্য এখানে বেশ অনেকটাই দিতে হয়। কখনো কখনো সেটা জীবন মৃত্যুর মাঝামাঝি এনে দাড় করিয়ে দেয়। তাই…

বাচ্চার পড়াশোনায় আনন্দ নিয়ে আসুন

কিছু বাচ্চা আছে যারা ছোটবেলা থেকেই পড়াশোনার প্রতি অনেক আগ্রহী থাকে। আবার এমন বাচ্চাও আছে যাদের পড়াশোনার প্রতি কোন আগ্রহ নেই। সারাদিন খেলাধুলা, হইচই করে কাটিয়ে দিতে চায় কিন্তু পড়তে বসলেই নানান টালবাহানা, অলসতা, কান্নাকাটি শুরু হয়ে যায়। এ ধরনের বাচ্চাদেরকে নিয়ে পরিবারের সবাই উৎকণ্ঠায় ভোগেন। হয়তো ভাবেন আপনার এমন বাচ্চাকে নিয়ে আপনার কিছুই করার নেই। সবাই ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল করবে কিন্তু আপনার বাচ্চা জীবনে কিছুই করতে পারবেনা। আসলে ব্যাপারটা কে এমন ভাবে দেখা উচিত নয়। শুধু পাঠ্যপুস্তক থেকেই যে বাচ্চাদের…

শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখবেন

আপনার শিশুর সুন্দর স্বাস্থ্য এবং পুষ্টি নিয়ে বেঁচে থাকার জন্য স্তন্যপান করানো সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বুকের দুধ শিশুদের জন্য আদর্শ খাবার। এটি নিরাপদ পরিষ্কার এবং এতে অ্যান্টিবডি রয়েছে যা শৈশবকালের অনেক সাধারণ অসুস্থতা থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে। পরবর্তী জীবনে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমায়। যে সকল মায়েরা তাদের বাচ্চাকে  বুকের দুধ পান করান, তাদের স্তন ও ডিম্বাশয় ক্যানসারের ঝুঁকি হ্রাস পায়।  শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর আদর্শ সময়সীমা: জন্মের প্রথম ঘণ্টায় আপনার শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর চেষ্টা করা ভালো। শিশুর প্রথম ছয়…

error: Content is protected !!