fbpx
skip to Main Content
প্রথম সন্তান ও নতুন সন্তানের দেখভাল এর ভারসাম্য

প্রথম সন্তানের আগমনের সংবাদ আপনার জীবনে নিয়ে এসেছিল অনাবিল আনন্দ। আর আপনি এখন দ্বিতীয় সন্তানের আগমনের অপেক্ষা করছেন। 

দ্বিতীয় সন্তান হওয়ার আগে ও পরে অনেক কিছুই ভিন্নভাবে বিবেচনা করে দেখতে হবে। কী ধরণের পরিবর্তন আসতে পারে সে-সম্পর্কে আপনাকে সচেতন হতে হবে। আপনার প্রথম সন্তানকে বোঝাতে হবে এবং দুই সন্তান বড় করে তোলার যাত্রাটা আনন্দময় করে তুলতে হবে। 

কোন জিনিসগুলো বদলে যাবে? 

দ্বিতীয় সন্তান জন্মের প্রথমদিকে দুই বাচ্চা সামলানো ছোটোখাটো যুদ্ধ মনে হতে পারে। বাচ্চার জন্মের আগেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখলে এই যুদ্ধ জয় করাটা কিছুটা সম্ভবপর হয় যদিও তা অনেক চ্যালেঞ্জিং বটে। 

আপনি হয়তো এতটাই ব্যস্ত হয়ে পড়বেন যে আপনার পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী ঠিক করে রাখা কাজগুলো করতেই পারবেন না৷ আবার দ্বিতীয় সন্তান জন্মের আগেই আপনি অনেক ক্লান্ত হয়ে পড়বেন প্রথম বাচ্চা সামলাতে গিয়ে কারণ প্রেগন্যান্ট অবস্থায় বাচ্চা সামলাতে গিয়ে অনেক ধকল যায় শরীরের উপর দিয়ে। 

নতুন শিশু জন্মের পর প্রথম ৬-৮ সপ্তাহ বাচ্চাকে নিয়ে খুব ব্যস্ত থাকতে হবে, এই সময়টায় বাচ্চার বিশেষ চাহিদা পূরণ করতে হয়। তার ঘুম, খাওয়া ইত্যাদির সময়সূচি ঠিকঠাক করতে হবে আপনাকে পাশাপাশি বড় বাচ্চার দেখাশোনাও করতে হবে। 

তবে আপনার প্রথম সন্তান হওয়ার পর তার সবকিছু দেখভাল করায় আপনার মধ্যে একটা আত্মবিশ্বাস গড়ে উঠবে। আপনার অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞান দিয়ে আপনি নতুন শিশুর যত্ন নিতে পারবেন। ডায়পার বদলানো, খায়ানো, অসুস্থ হলে বিশেষ যত্ন নেয়া এই কাজগুলো আপনি সহজেই করতে পারবেন। 

এটি আপনাকে কিভাবে প্রভাবিত করবে? 

অনেক ভাবেই নতুন শিশুর আগমন আপনাকে প্রভাবিত করতে পারে – শারীরিক কিংবা মানসিক দুই ভাবেই। 

শারীরিকঃ সন্তান জন্মদানের পর আপনি অনেক অসুস্থ কিংবা ক্লান্ত থাকতে পারেন যদি আপনাকে অনেক কঠিন পথ পাড়ি দিয়ে সন্তান জন্ম দিতে হয়। বিশেষ করে যদি সি-সেকশন করা হয়। অনেক রাত পর্যন্ত জেগে বাচ্চাকে ব্রেস্ট ফিডিং করানোও খুব কষ্টকর। 

ডেলিভারি পরবর্তী পোস্টপার্টাম সময়টায় রাতে কিংবা দিনে যদি আপনাকে কেউ সহায়তা করে বাচ্চা সামলাতে তাহলে হয়ত আপনি ঘুমিয়ে নেয়ার সময় পাবেন। নাহয় ঘুমহীন রেস্টলেস সময় কাটাতে হবে আপনাকে, আপনার শরীরের উপর দিয়ে অনেক ধকল যাবে তখন। 

 

মানসিকঃ অবাক হবেন না, যদি আপনি বাচ্চাদের সাথে বন্ধন কেমন হবে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। আপনি হয়তো চিন্তিত হতে পারেন এটা ভেবে যে প্রথম বাচ্চাকে যেভাবে আদর করেছন সেভাবে এই বাচ্চাকে পারবেন কিনা। 

 

বাচ্চা হওয়ার পর আপনার মাঝে কি দুঃখী ভাব কাজ করে? বেবি ব্লু খুবই মারাত্মক হতে পারে৷ তবে ভয়ের কিছু নাই, আপনি একা এই পথ পাড়ি না দিয়ে বরং ডক্টর এর সাথে কথা বলুন যদি আপনি ডিপ্রেশনে ভুগতে থাকেন। বেবি ব্লু আর পোস্টপার্টাম ডিপ্রেশন এর পার্থক্য বুঝতে হবে। এই ডিজঅর্ডার মারাত্মক হয়ে গেলে মুড সুইং, ঘুমের ব্যাঘাত ঘটতে পারে। আপনি যদি খুব হতাশ বা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন কিংবা নিজের বা বাচ্চার ক্ষতি করতে ইচ্ছে করে তাহলে দেরি না করে ডক্টর এর সাথে কথা বলুন। 

ডেলিভারি পরবর্তী কয়েকমাস আপনার নিজের জন্য হয়তো তেমন সময় পাবেন না। নির্ঘুম রাত, কিংবা প্রতিদিনের দুঃশ্চিন্তা আপনাকে অবসাদগ্রস্ত করে ফেলতে পারে৷ তাই অল্প সময়ের জন্য হলেও নিজের জন্য সময় বের করুন। চেষ্টা করুন নিজের যত্ন নেয়ার, নিজের সাথে সময় কাটানোর। 

প্রথম সন্তানকে এই পরিবর্তনের সাথে খাপ খাইয়ে নিতে সহায়তা করুনঃ 

আপনার বড় বাচ্চারও রয়েছে অনেক রকমের অনুভূতি। খুশি, ইর্ষা, বিরক্তি ইত্যাদি। যেসব বাচ্চারা এখনো কথা বলা শেখেনি তারা অনুভূতি প্রকাশ করে থাকে নানান উপায়ে। যেমন বৃদ্ধাঙ্গুলি চুষতে থাকে, নবজাতকের দুধের বোতল থেকে খেতে চায়, আপনার অ্যটেনশন পেতে সে তার ভাষায় কথা বলে। 

আপনার ধৈর্য পরীক্ষা করে, মিসবিহেভ করে, খাওয়ার অসম্মতি জানিয়ে বা আরো নানান উপায়ে তারা তাদের অনুভূতি প্রকাশ করে থাকে। এই সমস্যাগুলো আসলে সাময়িক। সামান্য একটু প্রস্তুতিই বাচ্চাকে নতুন অবস্থার সাথে মানিয়ে নিতে সাহায্য করতে পারে। এবং সেও তার ছোট ভাই বা বোনকে মেনে নিয়ে পরিবারে স্বাগত জানাতে পারে। 

বড় ভাই বা বোনের দায়িত্ব কী হতে পারে তাতে ফোকাস করুন:

– আপনার বড় বাচ্চাকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র এনে দিতে বলতে পারেন আপনার নতুন সন্তানের জন্য। এটি ভবিষ্যতে শেয়ার করার মানসিকতা তৈরি করবে। 

– কিছু স্পেশাল গিফট খুঁজে বের করুন৷ যা আপনার প্রথম সন্তান উপহার হিসেবে ছোটজনকে দিতে পারে। যেমন বাচ্চাদের বই, খেলনা ইত্যাদি। এছাড়া আপনি বড়জনের জন্যেও গিফট আনতে ভুলবেন না কিন্তু। 

–  আপনার এবং আপনার প্রথম সন্তানের জন্য একান্ত সময় বের করুন। হতে পারে বাচ্চাকে সাথে নিয়ে গ্রোসারিতে গেলেন, লাইব্রেরিতে গেলেন কিংবা কিছু এক্সট্রা গল্প পড়ে শোনালেন ঘুমাতে যাওয়ার আগে। 

– যখন নতুন বাচ্চা বাড়িতে আসে তখন কী করতে হবে তা বলে দিন আপনার প্রথম সন্তানকে। তাকে জানান, নবজাতকেরা বেশি কাঁদে, ঘুমায়, ঘন ঘন ডায়পার বদলে দিতে হয়। 

– বড় সন্তানকে নতুন সম্পর্কের সাথে পরিচয় করিয়ে দিন। তাকে বলুন সে এখন বড় ভাই বা বোন। তাকে নতুন এই সম্পর্ক উপভোগ করার সুযোগ করে দিন। 

– নবজাতকের দেখাশোনায় কিভাবে আপনার বড় সন্তান অংশগ্রহণ করতে পারে সেটা ভাবুন। বাচ্চার জন্য কাপড় বের করতে পারে, ডায়পার এনে দিতে পারে এমনকি ছোটজনের সামনে লাফালাফি, নাচানাচি করে হাসাতেও পারে যখন ছোটজন খুব বেশি কাঁদতে থাকে। 

নতুন বাচ্চার আগমনে অনেক ধরণের পরিবর্তনই আসে প্রথম বাচ্চার জীবনে। বাচ্চাকে হুট করেই দূরে সরিয়ে দেবেন না। বা তাকে বলবেন না যেন নিজের কাজ নিজে করে নেয়। তাকে ধীরে ধীরে তার কাজগুলোতে অভ্যস্ত করে তুলবেন। 

নতুন শিশুর জীবনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে বড় সন্তান। তাই তাকে সিদ্ধান্ত নেয়া থেকে দূরে রাখবেন না। তাকেও সুযোগ করে দিন ছোটজনের জন্য ভালো সিদ্ধান্ত নেয়ার। 

 

এই সময়ে সবকিছু কিভাবে সামলাবেন তার কিছু টিপসঃ 

– কিছু সহজ এবং দ্রুত রান্না করা যায় এমন উপকরণ ঘরে রাখুন। রান্নায় দরকার পড়ে এমন মশলা বেশি করে রেডি করে রাখুন।

– কাপড় ধোয়ার পরিমাণ বেড়ে যায় নতুন শিশুর আগমনের ফলে। অনেক কাপড় জমা করে না রেখে যথাসম্ভব দ্রুত ধুয়ে ফেলুন। 

– যেই জিনিসগুলো অলরেডি আছে তা পুনরায় ব্যবহার করুন। নতুন শিশুর আগমন উপলক্ষে আবার কেনার দরকার নেই। এতে সময় এবং অর্থ দুই’ই বাঁচবে। এমন অনেক জিনিস যা এখন প্রথম বাচ্চার জন্য দরকার পড়ছে না তা ছোটজনের বেলায় ব্যবহার করতে পারেন। 

– পরিবারের সদস্যদের বলুন বাচ্চার দেখাশোনা করতে। এতে করে আপনার উপর চাপ কমবে পাশাপাশি আপনার বিশ্রাম নেয়ারও সুযোগ হবে। 

– সম্ভব হলে হাউজ কিপিং সার্ভিসের মাধ্যমে ঘরের কাজ মাসে এক বা দুইবার করিয়ে নিতে পারেন। বা যদি কোনো হেল্পিং হ্যান্ড পান তার সহায়তা নিতে পারেন। 

– আপনার প্রয়োজনগুলোর কথা আবার ভুলে যাবেন না। নিজের সাথে সময় কাটান, নিজের যত্ন নিন। ঘুম, খাওয়া, রেস্ট, ত্বক, চুলের পরিচর্যা করুন নিয়মিত। 

একটু চেষ্টা, একটু বুদ্ধিমত্তা আর ভালোবাসা আপনার দ্বিতীয়বার মা হওয়ার আনন্দকে করে তুলতে পারে বহুগুণে সুখকর। আপনার প্রথম এবং দ্বিতীয় উভয় সন্তানের প্রতি যত্নশীল হোন, তাদের সমান অ্যাটেনশন দিন। যাতে করে তা নিরাপত্তাহীনতায় না ভোগে।

This Post Has 1,830 Comments
  1. In February of this year, you helped me to pass over my cat who is diagnosed with hyperthyroidism, a stab at a longer healthy life. You had sent me “zpack us” to start with. Within a occasional days..she was another cat! My cat had an existing turnaround with the treatment you advised. She responded so well. I flat have some of the other medication pink, but the Thyroidinum 200CH was what unquestionably got her on the auspicious path. I would like to order another vial of this from you. I have on the agenda c trick nothing to admit defeat at this point. She is eating a less ill diet (canned vs arid) and good quality and real chicken, but I really would like to try one’s hand at single more regime of this homeopathic pill. You are a extraordinarily dedicated and helpful people, and I own recommended you to all who think in this overtures to to treatment. I beget no philosophy how hanker this will keep from her, but with my option of reduce fitted her and your news, she is doing as well as I could have on any occasion imagined. In consequence of you so much again.

  2. It was adroit to regard Dr Cheng’s honour and zithromax pills deliver in your latest issue of Also smoodge Connection. Our puppy, Charlie was sold to us with a certainly cough. Two diverse vets treated him with antibiotics and charged me over $300.00 further Charlie kept coughing remarkably badly in the antiquated mornings. For ever the breeder figured out our whelp’s diagnosis and sent me to Cheng.

  3. Porn, Free-born Porn Videos, Porno Bonking Tube & XXX Pornography. Running Porn Movies – Unrestrained Iphone Having it away, Android XXX. Let go b exonerate it be known removed Porn Movies, Thriving to bed Cinema, XXX Porno Videos & Matured Porn
    free porn video